১৯৯৯ সালের চেয়ে ২০১৮ সালে বেশি ভোট চুরি হয়েছে

সখীপুর প্রতিনিধিঃ ১৯৯৯সালের ১৫ নভেম্বর যে ভোট চুরি হয়েছিল তারচেয়ে বেশী ভোট চুরি হয়েছে ২০১৮ সালে। এখন আর আমি ‘৯৯ সালের ভোট চুরির কথা বলতে চাই না। বুধবার বিকেলে ডাকবাংলো চত্বরে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম এ কথা বলেন।
এসময় তিনি নির্বাচন কমিশনার প্রসঙ্গে বলেন আবু হেনা সাহেব মেরুদণ্ড ওয়ালা নির্বাচন কমিশনার ছিলেন। আর বর্তমান যারা নির্বাচন কমিশনার হয় তাঁরা হলেন মেয়েও না ছেলেও না, মেরুদণ্ডহীন তৃতীয় লিঙ্গের লোক।
১৯৯৯ সালের ১৫ নভেম্বর টাঙ্গাইল-৮ জাতীয় সংসদ উপনির্বাচনে সরকারকর্তৃক জনগণের ভোটের অধিকার হরণের প্রতিবাদে সখীপুরে জনসভা করে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ।

এ জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, কয়েক দিন যাবত শুনছি বন বিভাগ নোটিশ দিয়েছে বাড়িঘর ছেড়ে দিতে হবে। এসব জমিতে রয়েছে মা-বাবার কবর, বাড়ি-ঘর ও ফসল আবাদের জায়গা। তিনি বন বনবিভাগকে হুশিয়ারি দিয়ে বলেন,  এক ইঞ্চি জমির মধ্যে যদি বন বিভাগ মাতব্বরি করতে যায় তাহলে আমাকে খবর দিবেন। তাদের (বন বিভাগের লোক) সখীপুর থেকে বের করে দেওয়া হবে।

বুধবার বিকেলে ডাকবাংলো চত্বরে আব্দুস ছবুর খানের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন – বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাবীবুর রহমান খোকা বীরপ্রতীক,  যুগ্ম সাধারণ ইকবাল সিদ্দিকী,কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শামীম আল মনসুর আজাদ সিদ্দিকী,টাঙ্গাইল জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হালিম সরকার, টাঙ্গাইল জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক  এটিএম সালেক হিটলু, দুলাল মাস্টার, আলমগীর সিদ্দিকী, আশিক জাহাঙ্গীর, আবু জাহিদ রিপন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap