টাঙ্গাইল জেলা সদরের ফুটপাতের দোকানগুলোতেও জমে উঠেছে ঈদের বেচাকেনা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ বছর ঘুরে আবারো আসছে ঈদ উৎসব। তাই মার্কেটগুলোর মতো টাঙ্গাইলের জেলা সদর রোড(কোর্ট চত্তর) ফুটপাতের দোকানগুলোতেও জমে উঠেছে ঈদের বেচাকেনা।

এখানে মানভেদে ২শ’ থেকে ৩শ’ টাকায় প্রতি পিস পাঞ্জাবি, ১৬০ টাকায় শিশুদের টি-শার্ট ও শার্ট এবং ফ্রক ২৬০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

তবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বেতন বোনাস হয়ে গেলে বিক্রি আরো বাড়বে বলে প্রত্যাশা এসব দোকানীদের।মঙ্গলবার(২৬ এপ্রিল) সরেজমিনে দেখা গেছে, সব বয়সী নারী-পুরুষের জন্য রং বে-রঙের বিভিন্ন ডিজাইনের জামা-কাপড় পাওয়া যাচ্ছে ফুটপাতে। সারি-সারি এসব দোকানগুলো থেকে প্রতিনিয়তই পছন্দমতো জামা-কাপড় ও শার্ট কিনছেন নিম্ন আয়ের মানুষ।
এখানে শার্ট বিক্রি হচ্ছে মাত্র ২০০ থেকে ২৬০ টাকায়। এসব শার্ট ঢাকার ইসলামপুর থেকে ও  বিভন্ন কারখানা থেকে সংগ্রহ করে এখানে বিক্রি করছে ব্যবসায়ীরা। ফুটপাতে অল্প আয়ের মানুষ সাধ্যের মধ্যে পণ্য কিনতে পেরে যেমন খুশি, তেমনি পণ্য বিক্রি করে খুশী দোকানীরাও। ঈদ উপলক্ষে ফুটপাতের দোকানগুলোতে শিশুদের ফ্রক, টি-শার্ট ছাড়াও বাহারী ডিজাইন ও নানা রঙের শিশুদের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে।

নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের পরিবারের সদস্যরা সাধ্যের মধ্যে পছন্দের জামা কাপড় খুঁজে নেন এই ফুটপাত থেকে। এখানে পাওয়া যাচ্ছে হরেক রকমের পায়জামা পাঞ্জাবি। রমজানের প্রথম দিকে তেমন জমজমাট না থাকলেও এরই মধ্যে জমে উঠেছে ফুটপাতের ব্যবসা। সব বয়সী নারী-পুরুষের জন্য রং-বেরংয়ের বিভিন্ন ডিজাইনের জামা-কাপড় পাওয়া যাচ্ছে এই ফুটপাতে। টাঙ্গাইলের ফুটপাতের বাজারে প্রতিনিয়তই ক্রেতারা আসছেন, পছন্দমতো জামা-কাপড় কিনছেন।

ফুটপাতের ব্যবসায়ী হাবিব, সুরুজ আলী, মমিনুর, আমিনুর জানান, ঈদের সময় যতো কাছে আসবে এই বেচাকেনা মধ্যরাত ছাড়িয়ে যাবে। আশাকরি এবারের ভালো ব্যবসা করতে পারবো। কথা হয় গোপালপুর থেকে আসা সমেজ আলীর সাথে তিনি বলেন, ভাই কোর্টে মামলা ছিলো হাজিরা দিতে এসে মার্কেট করে নিয়ে গেলাম। সাধ্যর মধ্যে কিনতে পেরে খুশি হয়েছি।
মধুপুর থেকে করিম মিয়া বলেন, আমি আনারস নিয়ে আসছিলাম,বিক্রি শেষ করে ছেলে মেয়েদের জন্য মার্কেট করে নিয়ে গেলাম। তয় সবজায়গার থেকে এখানে দাম একটু কম।
টাঙ্গাইল জেলা হকার্স সমিতির সাধারণ সম্মাদক মো. বাবলু মিয়া বলেন, আমাদের এই একটা ঈদে বেচাকিনি ভালো হয়। রমজান মাস শেষের দিকে চলে এসেছে। আমাদের ব্যবসাও জমজমাট হয়ে উঠেছে। এবার ঈদে ব্যবসা বালো হবে বলে মনে হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap