ভূঞাপুরে ৭ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ ও অপহরণের দায়ে মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বখাটে মো. ফারুক শেখ (২০) ও তার সহযোগি বন্ধুদের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় শনিবার (৭ মে) সকালে ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ভূঞাপুর থানায় ধর্ষণ ও অপহরণের মামলা দায়ের করেছেন।
অভিযুক্ত ধর্ষণকারী ফারুক উপজেলার গাবসারা ইউনিয়নের বানিয়াবাড়ি গ্রামের নাজমুল প্রধানের ছেলে। অভিযুক্ত অপহরণকারীরা একই গ্রামের।মামলা সূত্রে জানা যায়, ফারুক ওই স্কুলছাত্রীকে স্কুলে আসা-যাওয়াকালেসহ বিভিন্ন সময়ে প্রেমের প্রস্তাব ও রাস্তা-ঘাটে উক্ত্যক্ত করতো।
এর প্রতিবাদ করলে তুলে নেওয়ার হুমকি দিতো ফারুক। গত ৫ মে বৃহস্পতিবার সকালে স্কুলছাত্রী একা তার দাদার বাড়ি যাচ্ছিল। এসময় প্রেমের প্রস্তাব দেয় ফারুক। স্কুলছাত্রী ফারুকের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার দলবল নিয়ে অপহরণ করে।
এরপর নৌকাযোগে প্রথমে সিরাজগঞ্জের তার এক বন্ধুর বাসায় নিয়ে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে ফারুক। তারপর সেখান থেকে ফারুক তার খালার বাসায় নিয়ে ফের ধর্ষণের পর শারীরিক নির্যাতন করে বিয়ের চাপ সৃষ্টি করে।
পরে বিয়েতে রাজি না হওয়ায় অভিযুক্ত তার এক সহযোগি অপহরণকারীর বাড়িতে সন্ধ্যার দিকে স্কুলছাত্রীকে নিয়ে আসেন ফারুক ও তার অন্যান্য সহযোগিরা। এরপর এ বিষয়টি ভুক্তভোগির বাবা জানতে পেরে ওইদিন রাতেই ফারুকের বন্ধুর বাড়ি থেকে আত্মীয়-স্বজন ও স্থানীয় মাতাব্বরদের সঙ্গে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করেন।
এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফাহিম ফয়সাল সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, স্কুলছাত্রীটিকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত প্রধান আসামি ফারুক ও তার সহযোগিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap