সখীপুরে ইউপি নির্বাচনে অগঠনতান্ত্রিকভাবে তৃণমূলের মতামত উপেক্ষার প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন

সখীপুর প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের সখীপুরে দুটি ইউপি নির্বাচনে অগঠনতান্ত্রিকভাবে তৃণমূলের মতামত উপেক্ষা করে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের তালিকা জেলা থেকে কেন্দ্রে পাঠানোর প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ও গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আতিকুর রহমান বুলবুল এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। আজ সোমবার বেলা তিনটায় সখীপুর প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওই নেতা লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।
অভিযোগ পত্রে আতিকুর রহমান ছাড়াও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শামসুল আলম ও কামরুল হাসান নামে দুই আওয়ামী লীগ নেতাও  সাক্ষর  করেছেন।
উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আতিকুর রহমান লিখিত বক্তব্যে বলেন, টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জোয়াহেরুল ইসলাম আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ের প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে দলে অনুপ্রবেশকারী ও সাবেক ছাত্রদলের এক নেতার নাম এক নম্বরে দিয়ে কেন্দ্রে তালিকা পাঠিয়েছেন।
অভিযোগে আরও বলা হয়, ওই নেতার বাবাও ২০০৩ সালে উপজেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। তাঁর চাচা শফিকুল ইসলাম গজারিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন। সাংসদ জোয়াহেরুল ইসলাম নিজস্ব ক্ষমতাবলে সম্প্রতি ছাত্রদলের ওই নেতা আনোয়ার হোসেনকে গজারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে বসিয়েছেন।
আতিকুর রহমান ওরফে বুলবুল বলেন, প্রার্থী বাছাইয়ে ইউনিয়ন কমিটি কোনো বর্ধিত সভা করেননি।
গজারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মনোনয়ন প্রত্যাশী শামসুল আলম  বলেন, তৃণমূলকে উপেক্ষা ও অবজ্ঞা করে কেন্দ্রে যে তালিকা পাঠানো হয়েছে সেখানে আমার নামটিও নেই।
গজারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আমিন বলেন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের নির্দেশে পাঁচজন সম্ভাব্য প্রার্থীর একটি তালিকা জেলায় পাঠানো হয়েছে। তবে  কাকে এক ও দুই নম্বরে রাখা হয়েছে তা বলা যাবে না।
এ প্রসঙ্গে টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জোয়াহেরুল ইসলাম তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, গজারিয়া ইউনিয়নের তৃণমূলের নেতাদের অভিমত নিয়েই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি একটি তালিকা আমার কাছে পাঠিয়েছেন। এ তালিকা প্রস্তুতে আমার কোনো হস্তক্ষেপ নেই। বিধি মেনেই ও তৃণমূলকে মূল্যায়ন করেই তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap