গোপালপুরের ঝাওয়াইল ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছে আয়শা আক্তার শিখা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার ঝাওয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচনে আগামী ১৫জুন ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ হবে। চেয়ারম্যান পদে এ ইউপিতে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আয়শা আক্তার শিখা। তিনি গোপালপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়া দ্বিতীয় নারী চেয়ারম্যান প্রার্থী। এর আগে হাদিরা ইউনিয়ন পরিষদে নৌকা প্রতিকে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে বিলকিছ জাহান উপজেলায় প্রথম নারী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

দলীয় কর্মীরা বলেন, ঝাওয়াইল ইউনিয়নের ভেঙ্গুলা গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন বিএসসির একমাত্র কন্যা আয়শা আক্তার শিখা। উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর তৃণমূল থেকে দলকে সুসংগঠিত করার লক্ষে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি। মুক্তিযোদ্ধা বাবার আদর্শ বুকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে গোপালপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগকে ঢেলে সাজিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ছোট মনিরের নির্দেশনায় দলীয় কাজে রাত-দিন নিজেকে নিয়োজিত রাখের তিনি। ঝাওয়াইল ইউনিয়নবাসীর প্রতি গভীর ভালোবাসায় সেবা ও উন্নয়নমূলক কাজে একধাপ এগিয়ে আছেন তিনি। মানব ও সমাজসেবায় সকলের নজর কেড়েছেন। দল তাঁকে নৌকার মনোনয়ন দেয়ায় নেতা-কর্মীরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মিষ্টি বিতরণ করেছেন।

এদিকে আয়শা আক্তার শিখা দলের সভাপতি শেখ হাসিনা স্বাক্ষরিত দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনগণের প্রতি নিবেদন করেছেন। তিনি রবিবার উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রথমে সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত আলহাজ্ব হাতেম আলী তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহব্বায়ক শহীদ ইমরানের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পরে ঝাওয়াইল বাজারে নির্বাচনী পথসভা করেন। এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজসহ নেতাকর্মীরা বক্তব্য দেন। তবে, এ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আয়শা আক্তার ছাড়াও আওয়ামী লীগের কয়েকজন বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

আয়শা আক্তার শিখা জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর কর্মপ্রেরণা। নারী বলে তিনি পিছিয়ে নেই। অন্য প্রার্থীদের চেয়ে অনেক বেশি প্রচারণা জনসংযোগ করেছেন তিনি। ইউনিয়নের ভোটারদের কাছ থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছেন। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনি বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। মাদক, বাল্যবিবাহ ও সন্ত্রাসমুক্ত একটি মডেল ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap