টাঙ্গাইল র‌্যাব-১২ এর কোম্পানী কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন রাষ্ট্রপতি পুলিশ (পিপিএম) পদকে ভূষিত

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইল র‌্যাব-১২ এর কোম্পানী কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) পদকে ভূষিত হয়েছেন।

র‌্যাব প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায় পুলিশ সপ্তাহ ২০২২ উপলক্ষে অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ “রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক (পিপিএম)-২০২০” পদকে লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুনকে ভূষিত করা হয়।

তিনি ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রেষণে বাংলাদেশ নৌ বাহিনী হতে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়নে যোগদান করে অত্যন্ত সাহসিকতা ও সুনামের সাথে কাজ করে চলেছেন।

তিনি র‌্যাব-১, সিপিএসসি, গাজীপুরে এবং র‌্যাব-১২ এর সিপিএসসি, বগুড়ায় দায়িত্ব পালন শেষে সিপিসি-৩, টাঙ্গাইলে গত ৬ মাস যাবৎ সফলভাবে র‌্যাবের কোম্পানী কমান্ডারের দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন। লেঃ কমান্ডার মামুন,র‌্যাব-১ এর স্পেশাল কোম্পানী কমান্ডার(সিপিএসসি, পোড়াবাড়ি, গাজীপুর) হিসেবে দায়িত্ব পালন কালে ২০২০ সালে বিভিন্ন  ক্লুলেস হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন করে হত্যাকারী(৩০জন), জঙ্গি(৫জন), শীর্ষ সন্ত্রাসী(১৫জন), ধর্ষক(৩০জন), অপহরণকারী(৩২জন), মাদক ব্যবসায়ী(২১০জন), ছিনতাইকারী(৪৪জন), ডাকাতি(৭৬)সহ প্রায় ৫০০ জন আসামিকে আটক করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

তিনি বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে উদ্ধার করেছেন বিদেশি পিস্তল (৭টি), ওয়ান শুটারগান(০৫টি), বিয়ার (৩৫০ ক্যান), ইয়াবা(৩০,০০০  পিস), হিরোইন(১১৫ গ্রাম), বিদেশি মদ(৬৫), গাঁজা(৩০৪ কেজি), ফেনসিডিল(১৫০০ বোতল), দেশী মদ(১৮০০লিটার)সহ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৪ কোটি ৮২ লক্ষ টাকা জরিমানা করে রাস্ট্রীয় কোষাগারে জমা করেছেন।

এই দুঃসাহসিক অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য তিনি ২০২০ সালে অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের  স্বীকৃতি স্বরূপ  পুলিশ সপ্তাহ ২০২২ সালে “রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক (পিপিএম)-২০২০” পদকে তাকে  ভূষিত করা হয়।

পরবর্তীতে তিনি সিপিএসসি, বগুড়া এবং সিপিসি-৩, টাঙ্গাইল জেলায় চাঞ্চল্যকর ও মাদক অভিযান পরিচালনা করে র্সবমোট ৫৬০ জন আসামীকে আটক করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

র‌্যাব-১২ এর দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় তিনি বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে উদ্ধার করেছেন ইয়াবা (৩১৯৯০ পিস), হেরোইন (১৩২৮ গ্রাম), গাঁজা (৫১১ কেজি), ফেন্সিডিল (৬৬৯৭ বোতল) উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি বহু আলোচিত অভিযানে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি টাঙ্গাইল জেলাকে সন্ত্রাস, জঙ্গি ও মাদক মুক্ত করার লক্ষ্যে আভিযানিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

উল্লেখ্য ২০১৯ সালে লেঃ কমান্ডার মামুন সাহসিকতা ও ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ আইজিপি ব্যাজ প্রাপ্ত হয়েছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap