বাসাইলে উদ্বোধনের পরই ভেঙ্গে পড়লো নামফলক

বাসাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের বাসাইলে একটি সেতু নির্মাণের শুরুতেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় জমা পড়েছে। মূল সড়কের মাটি কেটে ডাইভার্সনে ফেলা, ডাইভার্সনে নির্ধারিত পরিমাণ উচ্চতা ও ইটের সলিং না করা, ডাইভার্সনে ব্যবহার করা ব্যক্তি মালিকানাধীন জমির ভাড়া পরিশোধ না করাসহ নানা অভিযোগ পথচারী এবং এলাকাবাসীর। উপজেলার কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের ছনকাপাড়া এলাকায় নির্মানাধীন সেতুটির ডাইভার্সনের পুরো কাজ শেষ না করে সেতুর কাজ শুরু করাকে কেন্দ্র করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আব্দুল জলিল সরকারের(জেভি) বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ করেছেন তারা।

বাসাইল উপজেলা প্রকৌশল দপ্তর থেকে জানা যায়, ২০২০ সালের বন্যার পানির তোড়ে ছনকাপাড়ার এই সেতুটি ভেঙ্গে যায়। ২০২১-২২ অর্থবছরে ওই স্থানে বিশ্বব্যাংক এবং জিওবি’র অর্থায়নে ৩ কোটি ৭২ লক্ষ ২ হাজার ৯৬৩ টাকা ব্যয়ে ৩৫ মিটারের একটি সেতু নির্মাণের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়। সেতু নির্মাণের আগে  ১০০ মিটার ডাইভার্সন নির্মাণের জন্যও প্রকল্প ধরা হয়েছে। প্রকল্পে ডাইভার্সনের নিচে ৩০ ফুট এবং উপরে ১২ ফুট প্রস্থ ধরা হয়েছে। ডাইভার্সনের কাজে ৪০ হাজার ঘনফুট মাটি বাবদ ৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ২৫৯ টাকা, ১০ ফুট প্রস্থ ও ৩৩০ ফুট দীর্ঘ সলিং বাবদ ১ লক্ষ ৩৯ হাজার ৮৭৮ টাকা এবং এইচবিবি বাবদ ২ লক্ষ ১৮ হাজার ২৮৩ টাকা বরাদ্দ ধরা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap